আমাদের সেবা সমূহ

চিকিৎসায় আমাদের সফলতা

 কম খরচে কিডনী সংযোজন করা

 ফুটো করে কিডনী পাথর অপসরন করা(PCNL)

 বিনা অপারেশনে কিডনীর পাথর ক্রাশ করা(ESWL)

 পেট না কেটে কিডনী, মুত্রনালী এবং মুত্রথলীর পাথর অপারেশন করা (RIRS, URS, ICPL, Cystolitholapaxy)

 পেট না কেটে প্রস্টেট গ্লান্ডের অপারেশন করা(TURP)

 পেট না কেটে মুত্রথলীর টিউমার অপারেশন করা(TURBT)

 পেট না কেটে সরু মুত্রনালীর আকার বৃদ্ধি করন(OIU)

 কিডনী বায়োপসি, জুগোলার ক্যাথেটার, CAPD ক্যাথেটার এবং A-V ফিসটুলা অপারেশন

 কিডনী মুত্রনালী মুত্রথলী পুরুষাঙ্গ এবং অণ্ডকোষের জন্মগত ত্রুটির অপারেশন

 দুর্ঘটনায় ছিড়ে যাওয়া মুত্রনালী অপারেশনের মাধ্যমে সংযোগ স্থাপন

 সাশ্রয়ী খরচে আইসিইউ সুবিধা

 USG Guided কিডনি বায়োপসি করা হয়।

 permanent Catheter করা হয়।

 কম খরচে কিডনি ডাইলাসিস করা হয়।

 ডায়াবেটিস ও প্রেশারের রগিদের সু চিকিৎসা।

 কিডনি, মুত্রনালি,এবং মুত্রথলির টিউমার অপসারণ ।

 কম খরচে লেজার লিথত্রিপ্সি করা হয় ।

 কম খরচে নিরভুল ভাবে সব ধরনের প্যাথলজি, আল্ট্রাসনোগ্রাম , ডিজিটাল এক্স রে, কিডনি পাথর এনালাইসিস করা হয়।

 কিডনী সংযোজন ৯০০(প্রায়), সফলতার হার ৯৪%

 ফুটো করে কিডনী পাথর অপসারণ সফলতার হার ৯৯%

 কিডনী পাথর ক্রাশ ৬০০০(প্রায়) সফলতার হার ৯৩%

 কিডনী মুত্রনালী এবং মুত্রথলী টিউমার অপারেশন(সহস্রাধিক)

 কিডনী মুত্রনালী মুত্রথলী পুরুষাঙ্গ এবং অণ্ডকোষের জন্মগত ত্রুটির অপারেশন(শতাধিক)

 পুরুষত্বহীনতা ও পুরুষ বন্ধাত্তের বিশেষ বিজ্ঞান ভিত্তিক চিকিৎসা

 FRCS,FCPS,MS,MD ও ২০ বছরের বেশি অভিজ্ঞতা সম্পন্ন বিশেযজ্ঞ ডাক্তারগন সকালে ও বিকালে এই হাসপাতালে বসেন

চিকিৎসায় সফলতা

বাংলাদেশে কিডনী ট্রান্সপ্লান্টকৃত রোগীর সুস্থ্য সন্তান প্রসব

চুয়াডাঙ্গা জেলার অধিবাসী মিসেস সুমি আক্তার ৮ বছর পূর্বে কিডনী বিকল রোগে আক্রান্ত হন। তার মায়ের দান করা একটি কিডনী অধ্যাপক ডাঃ মোঃ কামরুল ইসলাম তার শরীরে প্রতিস্থাপন করেন ২০১১ সালে। পরবর্তী সময়ে তিনি সুম্পূর্ন সুস্থ ও স্বাভাবিকভাবে জীবন যাপন করে আসছেন। গত বছর তিনি অন্তঃসত্ত্বা হন এবং গত ১১ অগাস্ট ২০১৮, Center for Kidney Diseases and Urological Hospital -এ একটি ফুটফুটে সুন্দর কন্যা সন্তানের জন্ম দেন। অধ্যাপক ডাঃ রোকসানা আইভি তার সিজার অপারেশন করেন। মা ও সন্তান উভয়েই সুস্থ্য আছেন। মায়ের প্রতিস্থাপিত কিডনীরও কোন ক্ষতি হয় নাই। ১০-০৭-১৯ সে ও তার সন্তান সহ আমাদের হাসপাতালে Follow-up এ আসে। তার প্রতিস্থাপিত কিডনী পূর্ণ সবল আছে (S Creatinine 123 micro mole/L)এবং তার সন্তান সম্পূর্ন সুস্থ্য আছে। আমরা তাদের সুস্বাস্থ্য কামনা করছি।

দুই বছরের শিশুর কিডনি থেকে পাথর অপসারণ

অধ্যাপক ডাঃ কামরুল ইসলাম (FRCS, MS, FCPS ) ও CKDU হাসপতালের ডেস্ক থেকেঃ ২ বছরের বাচ্চা রুপাইয়া আমাদের কাছে বাম কিডনীতে পাথর (2 cm size) নিয়ে আসে। আমরা ০৩/০৩/১৯ তারিখে ছোট ফুটো করে পাথর অপসারন করি। ০৬/০৩/১৯ ছুটি দেয়া হয় । বর্তমানে রুগী সুস্থ আছে।

সিকেডিইউ হসপিটালে সফলভাবে কিডনী প্রতিস্থাপন সম্পন্ন

০৭ মার্চ ২০১৯, সুমাইয়া সুলতানা , বয়স ২৮ বছর সিকেডিইউ হসপিটালে সফলভাবে কিডনী প্রতিস্থাপন করেন। এখন তার এস ক্রিয়েটিনাইন ৮৮ মাইক্রো মল/লি.। সে সিকেডিইউ হসপিটালে কিডনী প্রতিস্থাপনের ৬২৬তম রোগী।

আমাদের সম্পর্কে

Centre for Kidney Diseases and Urological Hospital কিডনী বিষয়ে একটি বিশেষায়িত হাসপাতাল হিসাবে ২০১৪ সালে জানুয়ারী মাসে যাত্রা শুরু করে। এখানে নেফ্রলোজী ও ইউরোলজী চিকিৎসার পাশাপাশি কিডনী বিকল রোগীদের জন্য অত্যন্ত সাশ্রয়ী খরচে ডায়ালাইসিস ও ট্রান্সপ্লান্টের ব্যবস্থা করা হয়। আমাদের এখানে একটি ট্রান্সপ্লান্টের জন্য সর্বমোট মাত্র ২ লাখ টাকা নেওয়া হয় (অপারেশন + ঔষধ + KT ICU খরচ)।এটা বাংলাদেশের অন্যান্য যেকোন বেসরকারী হাসপাতালের খরচের তুলনায় কম এবং বিদেশের তুলনায় তো অনেক কম। আমদের ধারনা প্রতিটি ট্রান্সপ্লান্টের মাধ্যমে বাংলাদেশের ৮-১০ লক্ষ টাকা মুল্যের বৈদেশীক মুদ্রা সাশ্রয় হচ্ছে। গত বছরে আমরা (২০১৯) এই হাসপাতালে ১২১ টি ট্রান্সপ্লান্ট করি। আমাদের অপারেশনের সফলতা হারও আন্তর্জাতিক মানের (graft survival rate 94%) উক্ত ১২১ টি ট্রান্সপ্লান্টের মধ্যে অল্প কিছু রোগীর কিডনী দুই থেকে তিন মাস পর Rejection হয়ে কাজ করে নাই। এ ছাড়া এই হাসপাতালে ট্রান্সপ্লান্টের পর প্রতিটি রোগীর ফলোআপ ও পরীক্ষা নিরীক্ষা ফ্রি করা হয়। কিডনি ট্রান্সপারেন্ট ছাড়াও আমাদের এইখানে কিডনীতে পাথর,কিডনীতে ক্যান্সার বা টিউমার,কিডনীতে পানি জমা,মূত্রনালীতে টিউমার, পাথর বা যক্ষা জাতীয় অসুখ, প্রস্টেট গ্রন্থির, ক্যান্সার বা টিউমার জাতীয় অসুখ, অন্ডকোষ ক্যান্সার বা টিউমার, অন্ডকোষ ফোলা বা আঘাতজনিত সমস্যা, মহিলাদের অনিয়ন্ত্রিত প্রসাব ও হাঁচি-কাশি দিলে প্রসাব বের হওয়া,পুরুষত্বহীনতা, পুরুষ জনানাঙ্গের জন্মগত ক্রটি, ঘন ঘন প্রশ্রাব হওয়া, চিকন নারে প্রশ্রাব হওয়া,ধীরে ধীরে প্রশ্রাব হওয়া, ফোঁটায় ফোটায় প্রশাব হওয়া, থেমে থেমে প্রশাব হওয়া, প্রশ্রাবের রাস্তায় জ্বালাপোড়া করা, প্রশ্রাবের রাস্তায় পুঁজ পড়া, প্রশ্রাবের রাস্তায় রক্তঝরা, প্রশ্রাব একেবারে ক্লিয়ার না হওয়া, প্রশ্রাবের রাস্তায় পাথর হওয়া, শেষ হওয়ার পর অকেক্ষণ ধরে প্রশ্রাব ঝরতে থাকা, দ্রুত বীর্যপাত হয়ে যাওয়া, রাতে বিছানায় প্রশ্রাব হওয়া, রাতে ঘন ঘন প্রশ্রাব হওয়া, প্রশ্রাব শুরু করতে দেরী হওয়া, যেতে যেতে প্রশ্রবা পড়ে যাওয়া ইত্যাদি রোগের সুচিকিৎসা দাওয়া হয় যার সাফল্যের রেট ৯৯%। প্রতি বছর আমাদের দেশে সহস্রাধিক রোগী কিডনী বিকল রোগে চিকিৎসা খরচের অভাবে মৃত্যবরন করিতেছে। কিডনী রোগের বিশেষায়িত হাসপাতাল হিসাবে আমাদের সামাজিক দায়বদ্ধতা রয়েছে। সেই উপলদ্ধি থেকেই কিডনী বিকল রোগীদের কম খরচে অভিজ্ঞ চিকিৎসক ও স্বাস্থকর্মীদের সমন্বয়ে সর্বাধুনিক চিকিৎসা দেওয়াই আমাদের লক্ষ্য । আমাদের এই সকল কার্যক্রম এ পর্যন্ত কোন অনুদান ছাড়া হাসপাতালের পক্ষ থেকেই বহন করা হয়। এ ব্যাপারে সকলের সহযোগিতা পেলে আমরা কিডনী ট্রান্সপ্লান্টকে আরও মানবিক ও বিকশিত করতে পারব। অতএব আমরা সকলের সহানুভুতি ও সহমর্মিতা আশা করছি।

পরিচালক
অধ্যাপক ডাঃ মোঃ কামরুল ইসলাম

যোগাযোগ

সেন্টার ফর কিডনী ডিজিজেস এ্যান্ড ইউরলজি হসপিটাল

শ্যামলী কিডনী হাসপাতাল
রোড নং ০৩, বাড়ী নং ৩২
শ্যামলী, ঢাকা- ১২০৭৷

ফোনঃ
+৮৮০-১৭৭৭৬৮৫৮২১, +৮৮০-১৭৭৭৬৮৫৮২২
+৮৮-০২-৪৮১১৪৪৩০ , +৮৮-০২-৪৮১১৪৫৭০

পরিচালনায়

অধ্যাপক ডাঃ মোঃ কামরুল ইসলাম

FRCS(UK),FCPS(Surg),MS(Urology),HSC(Dhaka) ও SSC(Rajshahi) বোর্ড স্ট্যান্ড
প্রাক্তন অধ্যাপক(ইউরোলজী) ডেল্টা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, ঢাকা
প্রাক্তন সহযোগী অধ্যাপক ন্যাশনাল ইন্সিটিউট অব কিডনী ডিজিজেস এন্ড ইউরোলজি

একাডেমিক সফলতা

MBBS-ঢাকা মেডিকেল কলেজ,১৯৯০ প্রথম স্থান অধিকার করে স্বর্ণপদক প্রাপ্ত
FCPS(Surgery)-BCPS,১৯৯৫
MS(Urology) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (প্রাক্তন পিজি হাসপাতাল)২০০০
FRCS(Edin,UK)২০০৩
ইউরোলজি ও ট্রান্সপ্লান্ট বিষয়ে স্বর্ণপদক প্রাপ্ত ২০১০ (কিডনী ট্রান্সপ্লান্ট এ বিশেষ অবদানের জন্য)

বিশেষজ্ঞ ডাক্তারগণ

ইউরোলজী বিশেষজ্ঞ ডাক্তারগণ

১.অধ্যাপক ডাঃ মোঃ কামরুল ইসলাম,

এফ সি পি এস (সার্জারী) এম এস (ইউরোলজী), এফ আর সি এস (যুক্তরাজ্য)
প্রাক্তন অধ্যাপক (ইউরোলজী)
ডেল্টা মেডিক্যাল কলেজ এন্ড হাসপাতাল, ঢাকা৷
প্রাক্তন সহযোগী অধ্যাপক (ট্রান্সপস্নান্ট ইউরোলজী)
ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব কিডনী ডিজিজেস এন্ড ইউরোলজী, শেরে বাংলা নগর, ঢাকা৷
অধ্যাপক, সেন্টার ফর কিডনী ডিজিজেস এন্ড ইউরোলজি হসপিটাল ,শ্যামলী, ঢাকা
চেম্বার আওয়ারঃ শনি,রবি,সোম,বুধবার, দুপুর ২ টা হতে রাত ৯ টা পর্যন্ত |মঙ্গোল,বৃহস্পতি,শুক্রবার দুপুর ২ টা হতে বিকাল 8:৩০ টা পর্যন্ত

২.ডাঃ নাজিমউদ্দিন আরিফ

এম বি বি এস, এম এস (ইউরোলজী)
সহযোগী অধ্যাপক (ইউরোলজী), উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতাল, ঢাকা
প্রাক্তন স্পেসালিষ্ট, ইউরোলজীষ্ট, এপোলো হসপিটাল, ঢাকা।

৩. ডাঃ মোঃ তৌহিদ বেলাল (তপন)

এমবিবিএস, এফসিপিএস (ইউরোলজী)
ইউরোলজী বিশেষজ্ঞ,
সহকারী অধ্যাপক (ইউরোলজি বিভাগ ), ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ এন্ড হাসপাতাল
কন্সালট্যান্ট, সেন্টার ফর কিডনী ডিজিজেস এন্ড ইউরোলজি হসপিটাল ,শ্যামলী, ঢাকা

কার্ডিওলজি বিশেষজ্ঞ ডাক্তারগণ

১. ডাঃ মোহাম্মদ আখতারুজ্জামান

এম,বি,বি,এস. এম, ডি (কার্ডিওলজি)
সহকারি অধ্যাপক, বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড হসপিটাল
মেডিসিন বিশেষজ্ঞ এবং কার্ডিওলজিস্ট , কনসালটেন্ট
সেন্টার ফর কিডনী ডিজিজেস এন্ড ইউরোলজি হসপিটাল ,শ্যামলী, ঢাকা

২. ডাঃ উম্মে হাবিবা ফেরদৌসী

এমবিবিএস, বি,সি,এস,(সাস্থ্য), এফসিপিএস (কার্ডিওলজি), ফেলোশিপ ইন ইলেক্ট্রোফিজিওলজি এন্ড কার্ডিয়াক পাসিং ডিভাইস
Escorts Fortis Hospital, Delhi, India
কন্সালট্যান্ট : মেডিসিন ও হৃদরোগ (ইলেক্ট্রোফিজিওলজিস্ট )
ক্লিনিকাল ও ইন্টারভেনশনাল কার্ডিওলজি
জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল, সোহরাওয়ার্দী কমপ্লেক্স ,ঢাকা
কন্সালট্যান্ট, সেন্টার ফর কিডনী ডিজিজেস এন্ড ইউরোলজি হসপিটাল ,শ্যামলী, ঢাকা

নেফ্রলজী বিশেষজ্ঞ ডাক্তারগণ

১. অধ্যাপক ডাঃ দিলিপ কুমার রায়

এম,বি,বি,এস , এফ, সি,পি,এস (মেডিসিন), এম, ডি (নেফ্রলজী),
মেডিসিন এবং কিডনি রোগের বিশেষজ্ঞ
প্রাক্তন অধ্যাপক-নেফ্রলজী, ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অফ কিডনি ডিজিজেজ অ্যান্ড ইউরোলজী
কন্সালট্যান্ট, সেন্টার ফর কিডনী ডিজিজেস এন্ড ইউরোলজি হসপিটাল ,শ্যামলী, ঢাকা
চেম্বার আওয়ারঃ প্রত্যেক দিন ১২ দুপুর টা হতে দুপুর ২ টা পর্যন্ত (বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার বন্ধ) ।

২.সহযোগী অধ্যাপক ডাঃ রেজওয়ানুর রহমান

এম,বি,বি,এস. এম,ডি (নেফ্রলজী)
সহযোগী অধ্যাপক এবং ডিপার্টমেন্টাল হেড সার্টিফাইড ডাইব্যাটলজিস্ট (বারডেম)
বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড হসপিটাল
কন্সালট্যান্ট নেফ্রলজী
সেন্টার ফর কিডনী ডিজিজেস এন্ড ইউরোলজি হসপিটাল ,শ্যামলী, ঢাকা
চেম্বার আওয়ারঃ প্রত্যেক দিন বিকাল ৫ টা হতে রাত ১০ টা পর্যন্ত (শুক্রবার বন্ধ) ।

৩. ডাঃ তানভীর রহমান

এম,বি,বি,এস (সি, এম, সি,). সি, সি, ডি (বারডেম), এম, ডি (নেফ্রোলজি)( বি স এম এম ইউ) ,
কিডনি, মেডিসিন এবং ডায়াবিটিস বিশেষজ্ঞ
কন্সালট্যান্ট-নেফ্রলজী
সেন্টার ফর কিডনী ডিজিজেস এন্ড ইউরোলজি হসপিটাল ,শ্যামলী, ঢাকা
চেম্বার আওয়ারঃ শনি,রবি,মঙ্গোল,বুধ,বৃহস্পতি বিকাল ৩:৩০টা হতে রাত ১০ টা পর্যন্ত,সোমবার বিকাল ৩:৩০টা হতে ৭টা পর্যন্ত (শুক্রবার বন্ধ) ।

ICU বিশেষজ্ঞ ডাক্তার

১. ডাঃ সিরাজুল ইসলাম

এম,বি,বি,এস. বি,সি,এস,(সাস্থ্য), এম,ডি (ক্রিটিকাল কেয়ার মেডিসিন ).এম,সি,পি,এস, (মেডিসিন)
সহকারি অধ্যাপক এবং ডিপার্টমেন্টাল হেড (ক্রিটিকাল কেয়ার মেডিসিন বিভাগ )
ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ নিউরো সাইন্স এন্ড হাসপাতাল ,ঢাকা
কনসালটেন্ট : আই সি ইউ ও ইন্টারনাল মেডিসিন
সেন্টার ফর কিডনী ডিজিজেস এন্ড ইউরোলজি হসপিটাল ,শ্যামলী, ঢাকা

সাধারণ প্রশ্নসমূহ

এই হাসপাতালে যে সব কিডনী রোগের চিকিৎসা করা হয়:

কিডনী প্রতিস্থাপন: 

যে সব রোগীর কিডনী সম্পূর্ণ অকেজো হয়ে গেছে অর্থাৎ 5 stage ,সে সব রোগীদের কিডনী প্রতিস্থাপন করা প্রয়োজন৷ কিডনী প্রতিস্থাপন একটি জটিল অপারেশন যা এই হাসপাতালে করা হয়৷ অপারেশনের ১২-১৪ দিনের মধ্যে রোগী বাসায় যেতে পারে৷ কিডনী প্রতিস্থাপনের মাধ্যমে কিডনী অকেজো রোগীরা স্বাভাবিক ভাবে জীবন যাপন করতে পারে৷ এতে রোগীদের আর ডায়ালাইসিসের প্রয়োজন হয় না৷ গত ৬ বছরে ৮০০ টি কিডনী প্রতিস্থপন করা হয়েছে৷ যার সফলতা ৯৪ %৷
পাথর (PCNL): 

এই হাসপাতারে অত্যাধুনিক মেশিনের মাধ্যমে ফুটো করে কিডনীর পাথর বের করা হয়৷ এতে সম্পূর্ণ পাথর বের আনা হয়৷ যা এই হাসপতালে করা হয়৷ এখন রোগীদের কেটে আর পাথর বের করতে হয় না৷ কি কি কারণে এবং শরীরের কোন পদার্থ খেকে পাথর হয় Stone analysis এর মাধ্যমে নির্নয় করা হয়৷ অর্থাত্ আবার যাহাতে পাথর না হয় তার প্রতিরোধ করা যায়৷ গত ৬ বছরে এই হাসপাতালে প্রায় ৬০০০ রোগী অপারেশন করা হয়েছে৷ যার সফলতা ৯৯%৷
ESWL 

না কেটে কিডনীর পাথর ক্রাশ (গুড়া) করা হয়৷ যা পরে প্রসাবের মাধ্যমে বের হয়৷ যা গত ১ বছরে প্রায় ৬০০ রোগী ক্রাশ হয়েছে৷ এতে হাসপাতালে থাকার প্রয়োজন পড়ে না৷ দুই থেকে তিন ঘন্টার মধ্যে রোগী চলে যেতে পারে৷ যার সফলতা ৯৫%৷
URS and ICPL : কিডনীর নালীতে পাথর হলে তা মেশিনের মাধ্যমে বের করা হয় ৷ এ্ই অপারেশনের ক্ষেত্রে রোগীকে হাসপতালে থাকার দরকার হয় না৷ দুপুরে করলে সন্ধায় চলে যেতে পারে৷ এর সংখা হবে শতাধিক৷ এর সফলতা ৯৯%৷
Cysolitholapexy: :

মুত্রথলিতে পাথর হলে তা অপারেশনের মাধ্যমে সম্পুর্ন পাথর করা হয়৷ এ ক্ষেত্রে কোন প্রকার কাটার প্রয়োজন হয় না৷ এই ক্ষেত্রে রোগীকে ৬-৭ ঘন্টা পর বাসায় চলে যেতে পারে৷ যার সফলতা ১০০%৷
TURP:

 উহা পুরুষ যৌনাঙ্গ ও মূত্র থলির মাঝে অবস্থিত এবং প্রসাব বের হবার রাস্তার চারপাশ জুরে অবস্থান করে৷ যদি কোন কারণে প্রষ্টেট গ্রন্থি বড় হয়ে যায় তবে উহা প্রসাবের রাস্তার সুরু করে ফেলে এবং প্রসাব হওয়ার ক্ষেত্রে বাধা প্রদান করে ৷ এ ক্ষেত্রে রোগীর প্রসাব অল্প অল্প হয়৷ অনেক সময় প্রসাব বন্ধ হয়ে যায়৷ সে ক্ষেত্রে ক্যাথেটার দিয়ে প্রসাব করতে হয়৷ এই অপারেশনের মাধ্যমে রোগী আগের মত স্বাভাবিক প্রসাব করতে পারে৷ যা এই হাসপাতালে করা হয়৷ গত ১ বছরে প্রায় শতাধিক হয়েছে৷

মুত্রথলিতে ক্যান্সার ক্যান্সার (TURBT): যে সব রোগীদের প্রসাব করা সময় চাকা চাকা রক্ত বের হয়৷ অথর্্যাত্ প্রসাব থলিতে অস্বাভাবি কিছু থাকে, অথবা রক্ত বের হতে থাকে, সেসব রোগীদের কোন রকম কাটা ছাড়াই মুত্রথলির ক্যান্সার অপসারন করা হয়৷ ফলো আপের মাধ্যমে সম্পূর্নভাবে ভাল থাকে৷ যা গত ১ বছরে শতাধিক হয়েছে৷
Radical cystectomy and urinary diversion: 

যাদের সম্পুর্ণ প্রসাবের থলিতে ক্যান্সার: যাদের সম্পূন প্রসাবের থলিতে ক্যান্সার হয়, সে সব রোগীদের প্রসাবের থলি ফেলে দিয়ে বাইপাস সার্জারী করা হয়৷ এতে রোগী স্বাভাবিকভাবে চলাফেরা এবং জীবন যাপন করতে পারে৷ যা এই হাসপাতালে করা হয়৷
Pyeloplasty:

যাদের কিডনীর নালীতে জন্মগতভাবে বাধা থাকে, এতে রোগীর বাধাগ্রস্ত কিডনী ধীরে ধীরে কায়কারিতা হারিয়ে ফেলে এবং যদি দীর্ঘদিনধরে চরতে থাকে তাহলে কিডনী সম্পুর্ন অকেজো হয়ে যেতে পারে৷ সেক্ষেত্রে অপারেশনের মাধ্যমে কিডনীর বাধা মুক্ত করে দেওয়া হয়৷ এতে কিডনীর কার্যকারিতা চলতে থাকে৷ রোগীর আর কোন ব্যাথা থাকে না৷ যা এই হাসপাতালে করা হয়৷
OIU:যে সব রোগীদের প্রসাবের রাস্তা চিনক হয়ে গেছি তার লক্ষণগুলো হলো:

প্রসাব করতে সময় বেশ সময় লাগে, খুব সুরু আকারে প্রসাব হয়, পরিপূর্ন প্রসাব হয় না৷ তাদের ঙওট এর মাধ্যমে অত্যাধুনিক মেশিনের মাধ্যমে অপারেশন করা হয়৷ যা এই হাসপাতালে করা হয়৷ রোগীকে মাত্র এক দিন হাসপাতালে থাকতে হয়৷ এতে রোগী স্বাভাবিক ভাবে প্রসাব করতে পারে৷ এক্ষেত্রে একটি চিকুন টিউব দেয়ে প্রসাবের রাস্তায় ব্যায়াম করতে হয়৷ যাহাতে প্রসাবের রাস্তা সুরু হয়ে না যা৷ গত এক বছরে শতাধিক অপারেশন হয়েছে৷ যার সফলতা ৯৯%৷
BMGযে সব রোগীদের প্রসাবের রাস্তা সুরু হয়ে গেছি, তার লক্ষণগুলো হলো:

প্রসাব করতে সময় বেশ সময় লাগে, খুব সুরু আকারে প্রসাব হয়, পরিপূর্ন প্রসাব হয় না৷ সব সময় প্রসাব তল পেটে জমা হয়ে থাকে৷ এই সব রোগীদের সুরু স্থানে চামড়ার একটি পদর্া স্থায়ীভাবে লাগানো হয়৷ এর ফলে রোগী স্বাভাবিক ভাবে প্রসাব করতে পারে৷ এতে রোগীদের কোন প্রকার টিউব ব্যবহার করতে হয় না৷ যা এই হাসপাতালে অপারেশন করা হয়৷ সললতা হার ৯৫%৷
শিশুদের(Hypospediasis):

যে সব শিশুদের জন্মগত ভাবে লিঙ্গের মাথায় নিচে আরেকটা ছিদ্র থাকে থাকে ৷ সে সব রোগীদের এই হাসপাতালে অপারেশন করা হয়৷ এতে রোগীর আর আগের মত প্রসাব হয় না৷ রোগী লিঙ্গের সম্মুখ দিক দিয়ে প্রসাব করতে পারে৷
মুত্রনালী ছিড়ে যাওয়া (Anastomotic Urethroplasty):

 যে সব রোগীদের কোন দুর্ঘটনায় মুত্রনালী ছিড়ে যায়, তাদেরকে নিচ পেটে ফুটো করে পাইপ দিয়ে সাময়িকভাবে প্রসাব করানো হয়৷ সে সব রোগীদে অপারেশনের মাধ্যমে মুত্রনালী সংযোগ স্থাপন করা হয়৷ এতে রোগী স্বাভাবিকভাবে আগের মত প্রসাব করতে পারে৷ যা অত্র হাসপাতালে করা হয়৷
প্রসাব ঝরা (VVF):

যে সব মহিলাদের হিস্ট্রেকট্রমি অপারেশনের কারনে হাচি, কাশি, নামাজ পড়ার সময়, কোমর বাকা করে কোন কিছু নিচ থেকে তোলার সময় প্রসাব ঝরে, সেই সব রোগীদের এই অপারেশনের মাধ্যমে তার সমাধান করা হয়৷ যা এই হাসপাতালে করা হয়৷ সফলতার হার ১০০%৷
Kidney Biopsy:

বড় নীডলের মাধ্যমে কিডনি থেকে টিসু নিয়ে পরীক্ষা করার মাধ্যমে কিডনীর সঠিক রোগ নির্নয় করা যায়৷ এটা খুব অভিজ্ঞ ডাক্তার দিয়ে করতে হয়৷ যা আমাদের হাসপাতালে করা হয়৷
ক্যাথেটার: যে সব অকেজো রোগীদের হঠাত্ করে ডায়ালাইসিস প্রয়োজন হয়৷ সে সব রোগীদের গলায় ক্যাথেটার স্থাপন করা হয়৷ ক্যাথেটার দিয়ে রোগী ডায়ালাইসিস নিতে পারে যা এই হাসপাতালে করা হয়৷ এই রোগীকে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার প্রয়োজন হয় না৷ ক্যাথেটার করার পর রোগী চলে যেতে পারে৷
ফিস্টুলা (Fistula AVF):

 কিডনী অকেজো রোগীদের হাতে ফিস্টুলা করার প্রয়োজন হয়৷ কারন এর মাধ্যমে রোগী খুব সহজে ডায়ালাইসিস নিতে পারে৷ ফিস্টুলার মাধ্যমে রোগী ডায়ালাইসিস নিলে রোগীর কোন প্রকার অসুবিধা হয় না৷ এতে ইনফেকশন হওয়ার সম্ভাবনা থাকে না৷ ফিস্টুলা মাধ্যমে ডায়ালাইসিস করলে সহজে রক্ত প্রবাহিত হয় এবং রক্ত জমাট হয় না৷ যা এই হাসপাতালে করা হয়৷
ডায়ালাইসিস (Dialysis):

 যাদের দুটো কিডনী সম্পুর্ণ অকেজো হয়ে গেছে, তাদের লক্ষণসমূহ হলো: শাস কস্ট, পেটে পানি, হাত পা ফোলা, বমি হওয়া৷ এই সব রোগীদের জন্য ডায়ালাইসিস অথবা কিডনী প্রতিস্থপান করতে হয় যা এই হাসপাতালে করা হয়৷ ডায়ালাইসিসের মাধ্যমে কিডনী অকেজো রোগীদের কিডনীর ময়লা, লবন এবং অতিরিক্ত পানি বের করা হয়৷ এতে রোগীর রক্তকে স্বাভাবিক করে দেয়৷
CAPD:

 যে সব রোগীরা ঈঅচউ করার মাধ্যমে বাসায় বসে নিজে নিজে ডায়ালাইসিস করতে ইচ্ছুক সে ধরনের অপারেশনের ব্যবস্থা এই হাসপাতালে করা হয়৷ এই অপারেশনের মাধ্যমে রোগী স্বাভাবিক ভাবে জীবন যাপন করতে পারে৷
উপরোক্তগুলো ছাড়াও বাকী কিডনী এবং ইউরোলজী অন্যান্য অপারেশন করা হয়৷